২৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

শুদ্ধ সাহিত্যের স্রষ্টা নসীম হিজাযী ও তার উপন্যাসসমূহ

নসীম হিজাযী দুনিয়া ছেড়ে চলে গেছেন অনেক আগেই। কিন্তু প্রায়ই তার বইগুলো ঘেঁটে তার মতন লেখকের প্রয়োজনীয়তা যে কী ভীষণ অনুভব করি তা বলার মতন না। আল্লাহ তার কাজগুলোকে কবুল করে নিন, তার ভুলত্রুটি মাফ করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসের মেহমান করে নিন। সুস্থ সাহিত্য, ইসলামের চেতনায় ভাস্বর, শক্তিশালী ভাষা ও দৃশ্যপট তৈরির কাজটা তিনি করেছেন নিপুণ দক্ষতায়।


নসীম হিজাযীর লেখা যত উপন্যাস, তার অনেকগুলোই আমি পুনঃ পুনঃ পড়েছি এবং পড়ছি যা আমার ঈমানের অনুভূতিকে শাণিত করেছে সবসময়। যারা এই সাহিত্য পড়েননি, তার জানেনই না উপন্যাস কেমন সুন্দর হতে পারে, আমাদের ইতিহাসকে কেমন করে অনুভব করা যেতে পারে। অশ্লীলতা ও সুড়সুড়িবিহীন যে উপন্যাস ও সাহিত্যের দৃশ্যপট হওয়া সম্ভব, তা হয়ত আমাদের প্রজন্মের অনেকেই জানেন না। তাদের ভুল ভাঙ্গাতে, নতুন এক দিগন্তের সন্ধান পেতে, সোনালী ইতিহাসের প্রেক্ষাপটে শুদ্ধ সাহিত্যের স্পর্শ পেতে আমি আমার ভাইবোনদের নসীম হিজাযী পাঠের আন্তরিক আহবান জানাই।


বাংলা ভাষায় অনূদিত বই তালিকা:

আমার জানামতে বাজারে প্রকাশিত নসীম হিজাযীর বইগুলো হলো-

০১) মরণজয়ী [দাস্তান-ই মুজাহিদ]
০২) সীমান্ত ঈগল [শাহিন]
০৩) আঁধার রাতের মুসাফির [আঁধেরি রাত কি মুসাফির]
০৪) শেষ বিকালের কান্না [কলিসা আওর আগ]
০৫) ইউসুফ বিন তাশফিন/মুজাহিদের তলোয়ার [ইউসুফ বিন তাশফিন]
০৬) হেজাজের কাফেলা [কাফেলায়ে হেজাজ]
০৭) কায়সার ও কিসরা [কায়সার আওর কিসরা]
০৮) মুহম্মদ বিন কাসিম [মুহম্মদ বিন কাসিম]
০৯) শেষ প্রান্তর [আখেরি চটান]
১০) খুন রাঙ্গা পথ [মুয়াযযম আলী]
১১) ভেঙ্গে গেলো তলোয়ার [আওর তলওয়ার টুট গেয়ি]
১২) কিং সায়মনের রাজত্ব [সফেদ জাযিরা]
১৩) আলোর কুসুম/মানুষ ও দেবতা [ইনসান আওর দেওতা]
১৪) ভারত যখন ভাঙল [খাক আওর খুন]
১৫) চুড়ান্ত লড়াই [আখেরি মায়ারকা]
১৬) ইরান তুরান কাবার পথে [পাকিস্তানসে দিয়ারে হরম তক]

# যেগুলো সম্পর্কে নিশ্চিত জানিনা। দেখিনি, তবে কিছু প্রকাশনী বের করেছে শুনেছি--

১৭) পুরস রাজার হাতি [পুরস কি হাতি]
১৮) তেত্রিশ কোটি দেবতার দেশে [ছো সাল বাদ]
১৯) সংস্কৃতি সমাচার [সাফফাত কি তালাশ]
২০) পরদেশি গাছ [পরদেশি দিরখাত]
২১) হারানো কাফিলা [গুমশুদা কাফিলা]

* * * *
[২৩ ডিসেম্বর, ২০১৪]